ঘৃনা নয় একমাত্র নবী ওয়ালা দরদ দিয়েই উম্মতকে উদ্ধার করা যায়।

পাকিস্তানে_মুলতানের_এক বাজারে একটি পতিতালয় ছিলো, মাওলানা তারিক জামিল ভাবতে লাগলেন এখানকার মহিলাগুলো তো আমার আপনজন। 

তারা যদি কাল হাশরের ময়দানে আমার নামে আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের কাছে নালিশ করে, তখন আমি রাসূল (সাঃ)-কে কি জবাব দিবো???

তারিক জামিল সারা দুনিয়ায় তাবলীগ করেছে, কিন্তু আমাদেরকে দ্বীনের দাওয়াত দেয়নি!!!

তারিক জামিল সাহেব মাগরিবের পর তিন সাথী নিয়ে ঐখানে গেলেন, গিয়ে (পর্দার আড়াল থেকে) প্রথম কথা বললেন “হে মেরে বেটি ওর বইনো! মে আপকো ইজ্জতকা চাদর পরানে আয়া ” অর্থাৎ হে আমার মেয়ে ও বোন, আমি এখানে এসেছি তোমাদের ইজ্জতের চাদর পরাতে।

তারাতো অবাক!!!! এখানে সবাই আসে আমাদের ইজ্জতের চাদর খুলতে, ইনি কে??? যে আমাদের ইজ্জত দিতে এসেছে???

তারিক জামিল সাহেব দেড় ঘন্টা বয়ান করলেন, বয়ানের মধ্যেই তাদের কান্নার আওয়াজে আল্লাহর আরশ কাঁপিয়ে তুলছে! বয়ান শেষে তারা এই গান্ধা কাজ ছেড়ে দেওয়ার এরাদা করলো।

তারিক জামিল সাহেব নিজেই তাদের কয়েকজনের অন্নের ব্যবস্থা করলেন, কয়েকজনের শাদীর ব্যবস্থা করলেন।

আলহামদুলিল্লাহ জাহান্নামের অতল থেকে তাদেরকে জান্নাতের খুশবু দিয়ে এলেন।

বিঃদ্রঃ ঘৃনা নয় একমাত্র নবী ওয়ালা দরদ দিয়েই উম্মতকে উদ্ধার করা যায়।

– ‘ঘৃনা নয়, একমাত্র নবীওয়ালা দরদ দিয়েই উম্মতকে উদ্ধার করতে হয়’!

আল্লাহ সবাইকে দ্বীনের ছহী সঠিক বুজ দান করুন।

পোষ্টটি আপনার বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করুন !
Share on Facebook
Facebook
15Pin on Pinterest
Pinterest
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin

Leave a Reply