নারী নির্যাতন ! নাকি পুরুষ নির্যাতন?

এক মহিলা তার এবং তার স্বামীর কিছু বন্ধু বান্ধব, আত্মীয় স্বজন, পাড়া প্রতিবেশীকে শরীরের কিছু দাগ দেখিয়ে বলল- “আমার স্বামী সবসময়ই আমাকে নির্যাতন করে।’

সবাই এক বাক্যে সেটা বিশ্বাস করল এবং বলল- “এ লোক কি নিষ্ঠুর !!! তার মানবতা বলতে কিছু নাই, প্রেম ভালোবাসা বলতে কিছু নাই।”

 

অন্যদিকে সেই মহিলার স্বামী তার অত্যন্ত কাছের কিছু ভাই-বন্ধুকে বলল- আমার স্ত্রী আমার সাথে খারাপ ব্যবহার করেছে, আমাকে আঘাত করেছে।”

শ্রবণকারীরা বলল- “তুমি তো একটা হিজড়া। বৌরে কন্ট্রোল করতে পারনা, বৌয়ের মাইর খাও আবার মানুষরে বলে বেড়াও। তোমার তো লজ্জা শরম নাই, তোমার গলায় দড়ি দেওয়া উচিত।”

 

😮 😮 😮

অবিশ্বাস্য মনে হচ্ছে? ????

এই মানুষগুলোই কিন্তু সেই মহিলার পক্ষে সহানুভূতি প্রকাশ করেছিল। অথচ, খুব কাছের মানুষ হওয়া সত্ত্বেও পুরুষটিকে অপমান অপদস্থ করেছে।

 

কেউ একটিবারও যাচাই করার চেষ্টা করল না – “কে অপরাধী”।

হতে পারে সেই “পুরুষ” ব্যক্তিটি অথবা সেই “নারী”।

কিন্তু সবাই অপবাদ দিল পুরুষটিকে।

 

আসুন আমরা চোখ বন্ধ করে অপবাদ না দিয়ে একটু যাচাই করি ” কে দায়ী”।

 

হতে পারে সেই নারী আমার বোন। তাই বলে কি আমি অপরাধীকে সমর্থন করব?????

তাহলে তো আমিও সমান অপরাধী।

 

না আমি কোন অপরাধীকে সমর্থন করতে ইচ্ছুক নই।

আমি সমর্থন করব শুধু তাকেই, যে নির্যাতিত।

হোক সে “নারী”, কিংবা “পুরুষ”।

হোক সে “হিন্দু” কিংবা “মুসলমান”।

 

কারণ- 

আমার মা একজন নারী। 

আমার বোন একজন নারী। 

আমার কন্যা একজন নারী।

তেমনি- 

আমার বাবা একজন পুরুষ।

আমার ভাই একজন পুরুষ।

আমার পুত্র একজন পুরুষ।

 

জাযাকাল্লাহু খাইরান

 

আজিজুল কবির

যে কোন ধরণের নির্যাতন বিরোধী 

https://m.facebook.com/azizul.kabir.16?fref=nf&ref=bookmarks

পোষ্টটি আপনার বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করুন !
Share on Facebook
Facebook
2Pin on Pinterest
Pinterest
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin

Leave a Reply